New User? | Forgot Password

Prose Library - Today's featured Prose

অণুগল্প: সঙ্গী
কৌশিকী ব্যানার্জী (মাম)
ছোট্ট অগ্নি ঘরবন্দিতেও খুশিতে ডগমগ। করোনা সংক্রমণ রুখতে লকডাউনের জেরে অগ্নির বাবা এখন বাড়িতে। তিনি বড় উকিল, সারাদিন মামলা-মোকদ্দমা নিয়ে ব্যস্ত। অন্যসময় বাবার স্টাডি রুমে ঢুকলে বকুনি জুটত। অথচ সেখানেই এখন অগ্নির দুপুরবেলা কাটছে বাবার মুখে গল্প-ছড়া শুনে। আবোল-তাবোল থেকে ফেলুদা কী নেই সে আসরে। তাছাড়াও বাবার wildlife-photographyর শখ আছে যে এতদিন জানতই না অগ্নি। বিস্মিত হয়ে বাবার তোলা ছবিগুলো দেখে। বাবার সাধের dslrএ ছবির তোলার তালিম চলছে এখন। অগ্নির বড় সাধ একদিন বাবার সঙ্গে ফটোগ্রাফি করবে সে। বিকেলে আবার বাড়ির ছাদে কোহলি-শামির ধুন্ধুমার ক্রিকেট ম্যাচও চলছে। এখন অগ্নির সকাল থেকে রাত নাওয়া-খাওয়া সব বাবার সঙ্গে। অভিমানী শিশুমনের অভিযোগ ছিল এতদিন বাবা বুঝি একটুও ভালোবাসেনা তাকে। আর এখন একান্তে বাবাকে পেয়ে কখন সে ব্যবধান ঘুচে বাবা বেস্টফ্রেন্ড হয়ে গেছে তা টেরই পায়নি সে। ধীরে ধীরে বাবা সেই সুপারহিরো হয়ে উঠছে অগ্নির জীবনে যার প্রতিচ্ছবি মানসপটে এতদিন দেখত সে। সত্যি এতবড়ো দুর্যোগে প্রাপ্ত অবসর বাবা-ছেলের বন্ধন কতখানি পোক্ত করে দিয়েছে।

Kaushiki Banerjee (Mum)

 

1 Comments | 1 Claps
মানুষের পাশে মানুষ থেকো

আজ ২৫শে মার্চ ২০২০
ভোররাতে স্বপ্ন দেখলাম সৃষ্টিকর্তা আমার ঘুম ভাঙিয়ে আমার পাশে বসে আছেন । তিনি ঔদাত্ব কন্ঠে আমাকে বলছেন , আর আমি শুনছি .........
“মানুষ মানুষের পরম বন্ধু । কেউ কারো শত্রু হয়ে জন্মায় না । নিজস্ব চিন্তা ভাবনার ভুল ভ্রান্তি থেকেই শত্রুতার জন্ম হয় । নিজ কর্মে সবাই খুশি থাকলে অপরের প্রতি কারো রাগ জন্মাবেনা । এ জগতের সকল কাজই মহান । কারো শারীরিক ক্ষমতা বেশী , কারো মস্তিস্কের ক্ষমতা বেশী । এ জগতে বেঁচে থাকার জন্য দুইয়েরই প্রয়োজন আছে । এ ওর পরিপূরক । নিজ নিজ ক্ষমতা অনুযায়ী তুলনাবিহীনভাবে কাজ করে যেতে হবে সকলকে । সবাই নিজে খুশি থাকো । অন্যকে খুশি থাকতে দাও । অন্যের কাজে খুশি হও । সুস্থ চিন্তাই একটা মানুষকে শারীরিক ও মানসিক ভাবে সুস্থ রাখে ; তার চারপাশের সমাজটাকে সেটা ক্ষুদ্রই হোক অথবা বৃহৎ তাকে সুস্থভাবে গড়ে তোলে । কাজেই সুস্থ চিন্তা ভাবনায় চারপাশটা দেখ । দেখবে , আনন্দজ্জ্বল চারপাশের সঙ্গে তুমিও মনে প্রাণে আনন্দে মেতে উঠেছ । জগৎটাকে সুন্দরভাবে , সুস্থভাবে বাঁচিয়ে রাখার দায়িত্ব প্রতিটি মানুষের । সে দায়িত্ব অবহেলার নয় । “
ঘুম ভেঙে আমি বিছানায় উঠে বসলাম । এক ঝলক নতুন রোদ্দুর এসে পড়ল আমার গায়ে । নব চেতনার উন্মেষ হল আমার অন্তরাত্মায় । আমি আমার সেই অনুভূতিগুলোই এখন বলব তোমাদের ।
আজ আমাদের সবার সামনে একটা বড় জৈব চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়েছেন আমাদেরই সৃষ্টিকর্তা । তিনি প্রতিনিয়ত লক্ষ্য রাখছেন আমাদেরই দিকে । এইসময় আমাদের আতঙ্কিত হলে চলবে না । আশাবাদী মন নিয়ে এই জৈব দুর্যোগের সময় আমাদের সকলকে সতর্ক এবং সচেতন থেকে আগামী প্রজন্মের জন্য একটা সুস্থ সুন্দর পরিচ্ছন্ন উজ্জ্বল জগৎ সৃষ্টির প্রতিজ্ঞা করতে হবে । এই কাজে সফলতা আনতে আমাদের সকলকে হাতে হাত মিলিয়ে , মনে মন জুড়ে চলতে হবে । নিজ শরীরে , নিজ অন্তরে , পরিবেশে নিজেকে পরিশুদ্ধ করে নেওয়ার সময় এসেছে । তাকে অবহেলা না করে সচেতনভাবে , সতর্কতার সঙ্গে জগৎ জুড়ে সমস্ত পার্থিব অপার্থিব বস্তু , চেতনাকে শুদ্ধ করে নিয়ে এক নতুন শান্তির জগৎ সৃষ্টি করতে হবে , যে মনুষ্য জন্ম আমরা প্রত্যেকেই পেতে চাই । কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতির কদর্য , ভয়াল রূপ আমাদের সুখ , শান্তি , আনন্দ এমনকি প্রাণটাও গ্রাস করে নিতে চাইছে । মানব তুমি হেরে যেও না ।
আমাদের সৃষ্টিকর্তার দেওয়া সমস্ত উপহার পেয়েও আমরা তা মন প্রাণ ভরে ভোগ করতে পারছি না । আমরা সকলেই ভীত সন্ত্রস্ত ! পেয়েও হারিয়ে ফেলছি আমাদের সুখ শান্তি আনন্দ খুশি । অনিচ্ছার দাস হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছি আমরা সকলেই । সৃষ্টিকর্তা যাকে যে কাজের জন্য এই পৃথিবীতে পাঠিয়েছেন তাকে সে কাজই করতে হবে । সৎ কর্মে কোনরকম ভালো মন্দ , উঁচু নীচু , জাতি , ধর্ম বিভেদ হয় না । সকল কাজই মহৎ কাজ । তাই পাওয়া না পাওয়ার হিসাব না কষে যা পেয়েছ তাই নিয়ে খুশি থাকো । এই জীবনটার জন্য চিরকৃতজ্ঞ থাকো সৃষ্টিকর্তার কাছে । তিনি এই জগতটাকে দেখার সুযোগ দিয়েছেন আমাদের । তাকে রক্ষা করার দায়িত্ব আমাদেরই ।
পৃথিবীর নিজস্ব শক্তির ভান্ডার ছাড়া আর সবকিছুই ক্ষণস্থায়ী । জীবন বড়ই ক্ষণস্থায়ী । যা তোমার পাওয়ার নয় সেসব কিছু পেতে চেয়ো না । মরিচীকার পিছনে ছুটে জীবনের অমূল্য সময়টাকে নষ্ট কোরোনা । চারপাশের মানুষদের মহৎ প্রাণ হিসাবে দেখ । তাদের কাজের হিসাব কোরোনা । মূলকথা জীবনটাকে ভালোবেসে বাঁচো । অন্য সকলকেও ভালোভাবে বাঁচার সুযোগ করে দাও । একা ভালো থাকা যায়না । হাহাকার গ্রাস করে । চারপাশের সবাই ভালো থাকলে তুমিও ভালো থাকবে । সেই ভালো থাকা থেকে আনন্দ উপভোগ কর । কারো সাথে তুলনায় গিয়ে নিজেকে অপমান কোরোনা । তুমিই তোমার তুলনা হয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন কর । এ জীবনে যা পেয়েছ তাকেই যত্নে লালিত কর । অন্যের বৈভবের পিছনে ছুটোনা । মন থেকে হিংসা বর্জন কর । তাহলে নিজেও উন্নত জীবন যাপন করবে , অন্যকেও করতে সাহায্য করবে । বাইরের কোন অশুভ শক্তিই আমাদের অনিষ্ট করতে পারবে না । এসো আমরা মানুষেরা একজোট হই মনে প্রাণে শক্তিতে । বিনাশ করি প্রাণঘাতী শত্রুকে ।।

subrata bandyopadhyay

 

0 Comments | 0 Claps

All Prose

Events

Surojit Online

কবিতাক্লাব ডট কম

এই তো সেদিন, ফেসবুকের পেজে লিখলাম একটা লাইন , “আর ভাল্লাগেনা তোমায় ছাড়া।”বন্ধুদের বললাম, সবাই মিলে কবিতা লিখলে কেমন হয়? হঠাৎ দেখি , চার পাতার একটা কবিতা তৈরি হলো, একেবারে চোখের সামনে, সব বন্ধুদের লেখা, মিলিয়ে মিলিয়ে।

See BLOG Read More

Search Writing

 

Search Writer By

 

Statistics

Number of VISITORS : 627526

REGISTERED USERS :

Number of Writers : 1625

Total Number of Poems : 27080

Total Number of Prose : 893

An Initiative By Surojit O Bondhura Kobita Club
Official Radio Partner

Designed and Developed by : NOTIONAL SYSTEMS